তোকে দেখব বলে

মৃত্যুও মুখ ঘুরিয়েছে।

কায়া,ছায়া,মায়া,মমতা পেরিয়ে

এখনও মোহমুক্ত বাঁচিয়ে রেখেছে

দেখব বলে উলঙ্গ চাঁদের গ্রহণ।

এখনও স্বপ্ন মধুময়

স্তম্বিত কাল,অন্তহীন সময়।

সেই কবেরকার ‘চাঁদ মামা দেখা’

কবেকার ফেলে আসা

নরম হাতের না-ভোলা ছোঁয়া।

কবেকার স্বপ্নে ভাসা জীবনের ডাকে

মৃত্যুর গ্রহণ হয়েছে কবেকার ফাঁকে।

 

আধ আধ কথা,না চেনা বুলি শোনা

সোনা কী এখনও চাঁদের কণা?

আজও বহুদূরের অচেনা।

বিপাকে জড়িয়েছে উদাসী মন

সময় হয়ত ভিক্ষা চেয়েছে

চিনতে তাকে প্রতিক্ষণ।

মৃত্যু দেয় না মরণের ডাক

সোনার চেতনা জানতে

মরণও থেমে থাকে জীবন ফাঁকে।
জানা অজানা অদৃশ্যের প্রান্তে।

সোনাকে কে চেতনা জাগাবে

জীবন মরণের প্রান্তে?
জীবনেকে না চিনে মরণের অঙ্কে।

তোর অপেক্ষায় এ জীবন

কবে তুই দিবি মরণের বাস্তব

ওপারের সঞ্জীবন লিখন?

 

অনেক দেখা হল পৃথ্বীর দুঃসময়

শুধু অচেনা বন্ধন দিন বাড়ায়।

মৃত্যু কী তবে জীবনের কাছাকাছি

তোকে দেখব বলেই কী

আজও বেঁচে আছি?

Advertisements