এখনও আমার সময় হয়নি যাওয়ার

ওরা চলে গেল আলোক উজ্জ্বল ঠিকানায়

পড়ে শুধু আমি, নিঃসঙ্গ একাকী নিরালায়।

কালস্রোতের অনন্ত অন্ধকার ভেদ করে

স্বপ্ন স্বর্গের ভাসমান উজ্জ্বল মোহনায়।

জন্ম, মৃত্যু, তো পৃথ্বীর চিরায়িত খেল।

কেউ কী খুঁজেছে দোঁহের অবিচ্ছেদ্য মেল?

কেউ কী দেখেছে দিবারাত্রির নিত্য খেলা?

কেউ কী বুঝেছে এদের অবিচ্ছেদ্য লীলা?

ব্যাথা তবু জাগে নিরন্তর শ্লেষে,

অনঅভিপ্রেত বিচ্ছেদের দুর্বিষহ ক্লেশে।

মরণের দ্বারে বসে জীবনের সামসুরা

মোহ মুক্তির প্রাচীন সনাতন অন্তরা।

কেউ তো শেখায়নি এর মাহাত্ম্য

অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরার অর্থ।

ক্ষয়িষ্ণু জীবন বাঁচার অভিলাষে

তিল তিল করে মরণের ক্লেশে।

অবলুপ্ত চেতনার নিশ্চিত অন্তে।

কে তুমি রবি, আঁকবে কালকের ছবি

সীমা অসীমের ভেদাভেদ ভুলে?

অনন্ত বিশ্ব, আঁকে ভাঙা গড়ার খেল

কোন অনন্তে খুঁজছ অসীমের মেল?

 

অনন্ত তো জাগ্রত চেতনার স্বত্বা

খুঁজেছ কী তাঁর সীমাহীন গভীরতা?

সীমা অসীম একই আত্মা।

তোমার মধ্যেই স্ফুরণ সব স্বত্বা।

Advertisements