থেমে গেছে কাল নিভে গেছে সময়

অনন্ত  রাত্রি  না  চেনা অধ্যায় ।

স্তব্ধ প্রহর নির্বাক বিস্ময়ে

অবলুণ্ঠিত আত্মা  খোঁজে  চেতনা

পৃথ্বীর মোহহীন  আঙিনায় ।

খোঁজে বিশ্ব , মহাবিশ্বের মোহনায়।

আমি নির্বাক  কবি

আঁকি আগামীর ছবি

কালস্রোতের  ইশারায় ।

অনাদি  কাল , নিয়েছে  বিশ্রাম

জরাজীর্ণ  মোহহীন  নিরালায়।

খেলে রবি

অনন্তের  না বলা ছবি

না-চেনা  স্বল্প  বলয়ে

অতীতের স্বপ্নমাখা

স্বপ্নহীন  অচেনা আজকের  আঙিনায় ।

আমি  আজকের ছবি

তোমাদের বলাৎকারের

নিঃশব্দ নির্বাক  অবলুণ্ঠিত  কবি

গাই  রবি উত্তীর্ণ নতুন সুরের ঐকতান ।

বিভেদ ছেড়ে  সীমা-অসীমের মায়াজাল   ভুলে

নতুন সুরের  নব  কলতান।

না- বলা সুরের অলিখিত গান ।

নতুন রূপে, না-চেনা আঙিনায়।

 

তুমি  কী আঁকতে পার  কালকের স্বপ্ন ?

অবলুণ্ঠিত স্বপ্নের   নতুন মোহনায়?

ফলাতে পার নতুন দূর্বা

কালস্রোতের অমানিশায় ?

গাঁথতে পার  নতুন তান

নিরালা আমাবস্যার জ্যোৎস্নায় ?

লিখতে পার নতুন  কাব্য

পঙ্কিল  কলঙ্কিত  সত্যের উপাখ্যান?

তুমি কী জাগাতে পার বহ্নি

শব অলঙ্কৃত চিতাদেহে  নতুন সম্মান?

খেলাতে পার নব  চেতনা ?

বনবীথিকার নব  মঞ্জরির  কুঞ্জে ?

আঁকতে পার নতুন  স্বপ্ন

আগামী কালস্রোতের  মধুরিত গুঞ্জে?

লিখতে   পার  কালস্রোতের

সত্য মধুর লেখা ?

তুমি  কী সত্যিই আঁকতে পার

বনাঞ্চলের নির্বাসন  টিকা?

 

স্বপ্ন  কী  কালস্রোতের জ্যোৎস্নায়?

না কি,   চেতনা বিহীন  অবক্ষয়ে?

কোথায় এই অলঙ্কৃতের শব?

কালস্রোত এখনও  হয়নি অবলুপ্ত

চেতনার কারাগারে।

 

এখনও গাইছে  গান

সে কোন নতুন পাখি।

তার-ই  স্বর ধ্বনিত হউক

স্বপ্নের সুরে।

কালস্রোতর  বিস্ময়ে ।

আমার  সমাধি হোক

আগামী  কালস্রোতর স্বরলিপি  এঁকে

না-চেনা চেতনার  নতুন  আলোকে ।

Advertisements