অ্যাফ্ররডাইট তুমি এক স্বপ্নমাখা উর্বশী।

রূপ লাবণ্যে দেহ সম্ভারের উরবসে

কলস ভৈরবে মহীয়ান ষোড়শী।

কল্পনার স্বপ্নে গড়া উড়বার মহীয়সী।

না-পাওয়ার স্বপ্ন আঙিনা ঢাকা।

স্বপ্ন মধু কল্পনায় আঁকা

নতুন আবেশের না-চেনা উর্বশী।

পলাশের রং নিয়ে কে তুমি এলে?

স্বপ্নমাখা দেহ কজ্জ্বলে

সুপ্ত সুবাসে, লাজুক নম্র মধুর এলোকেশে

মধুর জ্যোৎস্নার নতুন সুবাসের হরষে।

মোহময় উর্বশী?

স্বপ্নের পরশ ছোঁয়া

রঙের তুলিতে আঁকা

জ্যোৎস্নার করবি।

করে দিলে ইহলোকে পরবাসী

জীবন্ত স্বপ্ন সুন্দর উর্বশী।

কে তুমি এলে অ্যাফ্ররডাইট সেজে

আমার লাঞ্ছিত আঙিনায়?

আড়ম্বরহীন মুক্ত কেশে

কলঙ্কিত বনবিথকার মুক্ত জ্যোৎস্নায়।

কে তুমি এলে, দেহ কজ্জ্বল

সজল নিরালায়?

কে তুমি এলে, দাঁড়াত প্রভাতে

মূর্তির ছলনায়?

দেহ উধভাসে মৃদু স্বপ্নের উদাসে,

চারিধার শমিরহন

না-চেনা রূপের জৈবিক আরাধনায়।

না-চেনা অচেনা দেবীর মূর্তিতে

আমার স্বপ্ন কল্পনার মোহময় কীর্তিতে

স্বপ্নলিখায় উর্বশী পারদর্শী

অচেনা মধু ভরা জ্যোৎস্নায়।

কুল নেই কুলে

একূল দুকূল ভরা কুলে

হাতকাটা দীপ জালছে প্রদীপ

হৃদয়ের ভরা প্লাবনের গুঞ্জনে।

স্বপ্নে এঁকেছি তোমাকে

না পেয়ে ভাস্কর্যের চোখে

কল্পনার স্বপ্নে আঁকা

অরূপ রূপের ব্যঞ্জের কবি।

অনেক স্বপ্নে দেখা

কল্পনার জলছবি মাখা

অদেখার জাগ্রত জ্বলন্ত রবি।

স্বপ্নমাখা না-চেনা উর্বশী।

কে তুমি অ্যাফ্ররডাইট ভোলালে

শ্বেতসুভ্র মূর্তির সকৌতুক বিহ্বলে

স্বপ্নে দেখা, জীবন কুড়ানো

অনেক বনলতার নিঃশব্দ ছবি।

বিলাসী মনের মজলিসি আসরে

তুমি আজকের অয়াফ্ররডাইট রবি।

কোন অন্ধকারের আঙিনাতে

নতুন স্বপ্নে রামধনু রাঙালে

তোমার কল্পনার ময়ূরপঙ্খিতে আঁকা

স্বপ্ন নাওয়ে ভাসা না-চেনার নিঃশব্দ ছবি।

আমি একা ঘুরি জীবন্ত সত্যের আঙিনায়

তোমার কল্পনার বাইরের মোহনায়

অ্যাফ্ররডাইট আমি কোন ভাস্কর ছবি নই

এখনও একা আমি।

নিঃশব্দ তোমার প্রতিমূর্তি।

Advertisements