এদের কী সত্যি প্রয়োজন আছে?

যারা বন্ধুত্বের মুখোশে বারবার এসছে।

আমার আত্মাকে অস্বীকার করে

মুখোশের আড়ালে মুচকি হেসেছে।

ক্ষণিকের চেনা নাটকের পরিচিত সাজে।

এদের কী সত্যি প্রয়োজন আছে?

সামাজিকতার নাগপাশে জড়িয়ে

কর্পূরের মতন আতর মাখা হৃদয়ের ডালি ভরে।

প্রতারিত করেছে নির্মল হৃদয়ের খোলা আকাশটাকে।

মুক্ত বিহঙ্গ থেকে পরিণত করেছে দাসত্বের শৃঙ্খলে।

এদের কী সত্যি প্রয়োজন আছে?

যারা মহাবিশ্বের মহাব্যোমকে ধরতে চেয়েছে

বন্ধুত্বের শৃঙ্খলে কেনা বেচার নিলামে।

যেখানে মুক্ত বাতাস ফেলে নিশ্বাস

ভেসে যাওয়ার অনন্ত আনন্দলোকে।

গ্যস মাস্ক দিয়ে ঘুম পাড়িয়ে

এনাস্থেসাইজড করেছে তৃতীয় দৃষ্টিটাকে।

ফেলেছে শ্বাস, জাগিয়েছে আশ্বাস

ঘুমের ঘোরে ঢেকে চেতনাকে।

বন্ধুর বেশে শানিত তরবারি হয়ে

ছিন্নভিন্ন করেছে আমিটাকে।

এদের কী সত্যি প্রয়োজন আছে?

পাখনা মেলা উড়ে যাওয়ার নেশার পথে।

দিন থেকে রাতের অন্ধলোকের রথে।

যেখানে আছে গীত, কালের মহা সংগীত

অনন্ত শান্তির চির বসন্তের অমৃত লোকে।

যেখানে উদাস সময় সুর সাধে

কালকের মধুমাখা না-দেখা আলোকে।

Advertisements